শীতকালে-বিড়ালের-যত্ন

শীতকালে বিড়ালের যত্নের জন্য প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা

শীতে বিড়ালের যত্ন সম্পর্কে লিখছি আজকের এই পোস্ট। প্রিয় পাঠক পাঠিকারা আশা করি ভালো আছেন। 

আপনি যদি একজন বিড়াল প্রেমী হয়ে থাকেন। অথবা আপনার যদি পোষা বিড়াল থাকে। তাহলে আসছে শীতে আপনার পোষা বিড়ালটির যত্ন একটু বেশি নিতে হবে।

বিড়াল সব সময় উষ্ণ স্থান পছন্দ করে। বিড়াল উষ্ণ স্থান পছন্দ করে বলেই তারা মানুষের গা ঘেসে ঘুমাতেও পছন্দ করে।

তাই শীতে বিড়ালের যত্নের ক্ষেত্রে উষ্ণ জায়গা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শীতকালে বিড়ালকে একটু বেশি অসুস্থ হতে দেখা যায়।

শীতে পোষা বিড়ালের যত্ন

বিড়ালের শরীর লোমে ঢাকা থাকলেও বিড়ালকে শীত বেশি লাগে। বিড়ালকে শীত বেশি লাগে জন্যই এরা শীতকালে অসুস্থ হয় বেশি। 

আপনি আপনার পোষা বিড়ালটির জন্য যে যত্নগুলো নিতে পারেন তা নিচে লেখা হলোঃ 

১. শীতে বিড়ালের যত্ন নেওয়ার জন্য উষ্ণ বিছানাঃ

শীতে-বিড়ালের-যত্ন

বিড়াল একটা ঘুম প্রিয় প্রাণী। একটি বিড়াল যেহেতু দিনের এবং রাতের একটি বড় অংশ ঘুমিয়ে কাটাই তাই তার উষ্ণ বিছানার প্রয়োজন। বর্তমানে পোষা প্রাণীর চাহিদা বাড়ার সাথে সাথে বিড়ালের বিভিন্ন বেড হাউস ইত্যাদিও কিনতে পাওয়া যায়। 

তাই এই শীতকালে বিড়ালকে উষ্ণ রাখতে তার জন্য একটি গরম বিছানা বা উষ্ণ ঘর কিনে নিতে পারেন। উক্ত বিছানাটি আপনার ঘরের যে কোন এক পাশে রেখে দিলে সেখানে বিড়ালটি আরামে ঘুমাতে পারবে।

অথবা আপনার বিড়ালটি যদি বড় হয় তাহলে সফট ব্ল্যাঙ্কেট অথবা বেড ওয়ার্ম দিতে পারেন যাতে তারা রেস্ট নেওয়ার সময় প্রচুর আরাম অনুভব করে।

বিড়াল নিয়ে আরও পড়ুন নিচের লিঙ্ক থেকে 

বিড়ালের বয়স বোঝার উপায় || ৬ টি সহজ উপায়ে

২. শীতে বিড়ালের যত্নে উষ্ণ খাবার

অন্যান্য পোষা প্রাণীর মতো বিড়াল শীতে খাবার খাওয়া কমিয়ে দেয়। তাই বিড়ালকে তার বয়স অনুযায়ী তার পছন্দের খাবারটি দেন। শীতে বিড়ালের যত্নের ক্ষেত্রে একটু হালকা গরম খাবার খেতে দিন। যেহেতু বিড়ালটি শীতে একটু খাবার কমিয়ে দেয় তাই পুষ্টিকর খাবার খেতে দেন।

 

সরাসরি ঠান্ডা বা বাসি খাবার দেওয়া থেকে বিরত থাকুন।বিড়াল পানি পছন্দ করেনা। আর শীতকালে তো আর ওই না। তবে পানি শূন্যতা সকল প্রাণীর জন্যই ক্ষতিকর।

আপনার বিড়ালের যেন পানি শূন্যতা দেখা না দেয় তাই বিড়ালকে পানীয় খেতে দিন। আপনার বিড়ালের পানি শূন্যতা হয়েছে কিনা তা বোঝার জন্য নিচের টিপসটি ফলো করুনঃ

বিড়ালের দুই কানের মাঝখানের চামড়া সাবধানে টেনে ছেড়ে দিলে যদি তা ২-৩ সেকেন্ডের মধ্যে আগের অবস্থায় ফিরে না যায় তাহলে বোঝা যায় পানি শূন্যতা রয়েছে। পানি শূন্যতা থাকলে কিছুটা পানি খাইয়ে দিন।

৩.শীতে বিড়ালের যত্নের ক্ষেত্রে নিরাপদ জায়গা নির্ধারণ করুনঃ 

আপনার বিড়ালটি বাইরে ঘোরার অভ্যাস থাকলে অভ্যাসটি নিয়ন্ত্রণ করুন। প্রয়োজনে আপনার ঘরের অথবা আপনার বাড়ির একটা নির্দিষ্ট জায়গা নেট দিয়ে ঘিরে দিন।

শীতকালে উষ্ণতার খোঁজে বিড়াল বাইরে কোন উষ্ণ স্থানে ঘুমিয়ে পড়তে পারে। অন্য স্থানে ঘুমাতে গিয়ে বিভিন্ন দুর্ঘটনার শিকার হতে পারে। তাই শীতকালে বিড়ালটিকে নিজের বাসাতেই রাখার চেষ্টা করুন।

বিড়াল নিয়ে আরও পড়ুন নিচের লিঙ্ক থেকে 

বিড়ালের জ্বর হলে করণীয় সম্পর্কে আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে

শীতকালে বিড়ালের যত্নের জন্য প্রয়োজনীয় টিকাঃ

শীতকাল আসার আগেই বিড়ালকে রোগ প্রতিরোধ করার জন্য বিভিন্ন টিকা দিয়ে নিতে হবে। বিড়াল ভাইপোতার মিয়া এবং তুষারপাতের জন্য খুবই সংবেদনশীল একটি প্রাণী।

৫. শীতে বিড়ালের যত্নে রৌদ্র স্নানঃ

বিড়াল যেহেতু একটি উষ্ণতা প্রিয় প্রাণী। তাই শীতকালে তাকে সূর্যের আলোতে রাখুন। বিড়াল সূর্যের আলোর তাপকে খুবই পছন্দ করে। তাই ঘরের জানালার যে পাশ দিয়ে রোদ আসে পাশের পর্দা সরিয়ে রাখুন। যেন আপনার বিড়ালটি রোদ্র স্নান করতে পারে।

৬.শীতে বেড়ালের যত্নে গোসলঃ

বিড়াল যেহেতু একটি পরিষ্কার প্রাণী তাই তাকে গোসল করার প্রয়োজন হয়। তবে শীতকালে বিড়ালকে গোসল না করানোই ভালো। শীতে গোসল করাতে গেলে নিউমোনিয়া বা জ্বর হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

তারপরেও শীতে বিড়ালের যত্নে হালকা গরম পানি দিয়ে তোয়ালে ভিজিয়ে গা মোছ করে দিতে পারেন। প্রয়োজনে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করে বিড়ালের পশম শুকিয়ে দিতে পারেন।

৬ শীতে বিড়ালের যত্নে ঘরের তাপমাত্রাঃ

শীতে বিড়ালের যত্নের জন্য উন্নত উষ্ণ বিছানা দেওয়ার পরও বিড়াল সেখানে না শুলে বা আপনার পাশে এসে ঘুমাতে চাইলে রুমের ফ্যান কমিয়ে তাপমাত্রা বৃদ্ধি করার চেষ্টা করুন। এবং মেঝেতে উষ্ণ কার্পেট দিয়ে রাখতে পারেন।

৭. শীতে বিড়ালের যত্নে খেলাধুলাঃ

শীত লাগলে কি আমাদের ভালো লাগে। তাই আপনার ঘরের ভেতর বা বিড়ালের ঘরের ভেতর উষ্ণ জায়গা না থাকলে বিড়াল অস্থির হয়ে যেতে পারে। তাই ঘরকে গরম রাখার চেষ্টা করুন। এবং বিড়ালের ঘরের ভেতরে বিভিন্ন খেলনা, গেমস, পাজল, ফিডার ইত্যাদি রাখতে পারেন।

বিড়াল নিয়ে আরও পড়ুন নিচের লিঙ্ক থেকে 

বিড়াল সম্পর্কে ১০টি বাক্য || বিড়াল নিয়ে উক্তি 

বিড়ালের চোখের সমস্যা ও তার প্রতিকার, সাথে ঘরোয়া কার্যকরী সমাধান

শীতে বিড়ালের যত্নে স্কিন পরীক্ষাঃ

শীতকালে মানুষ এবং অন্যান্য প্রাণীর মতো বিড়ালের শরীর ও অসুস্থ হয়ে যেতে পারে। বিড়ালের স্কিন লালচে বা ফ্লাকি হলে বুঝতে পারবেন বিড়ালের স্ক্রীন শুষ্ক হয়ে গেছে।

এ সময় বিড়াল তার শরীরে চুলকানি অনুভব করতে পারে। শীতে বিড়ালের যত্নের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন বিড়ালটি তার চামড়া একটু পর পর কামড়ে দিচ্ছে কিনা। 

যদি কামড়ে দেয় তাহলে বুঝবেন স্কিন শুষ্ক হয়ে গেছে। এক্ষেত্রে প্রাণী চিকিৎসকের মতামত নিতে পারেন যে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এইসব আপনার বিড়ালের স্ক্রিনের উপকার এবং পশম ঝলমলে রাখতে সাহায্য করবে কিনা।

প্রাণী চিকিৎসক যেভাবে এটি দিতে বলবে ঠিক সেই অনুসারেই আপনার বিড়ালের ঔষধ সেবন করান।

শীতকালে বিড়ালের যত্নে আরো যে কাজগুলো করতে পারেন।

# বিড়াল ছানার বয়স দুই মাস হলেই ভাইরাসের টিকা দিয়ে নিতে পারেন।

# বিড়াল যেহেতু উষ্ণতা পছন্দ করে তাই শীতকালে আপনার ফ্লোর উষ্ণ কার্পেট দিয়ে দিতে পারেন।

# কোন বিড়াল অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে সুস্থ বিড়াল থেকে আলাদা রাখুন এবং যত দ্রুত সম্ভব প্রাণী চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন।

# বেশি শীত মনে হলে বিড়ালকে গরম কাপড় পরাতে পারেন

# শীতে বিড়ালের যত্নে বিড়ালকে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার দিন। যেমন কমলার রস বা লেবুর রস দিতে পারেন।

# লম্বা লোমের বিড়ালগুলো যেমন পারশিয়ান বিড়াল এই বিড়ালটির পায়ের থাবা গুলো ঠান্ডায় যন্ত্রণা করে। তাই আপনার যদি পার্শিয়ান বিড়াল থেকে থাকে তাহলে নিয়মিত পায়ের থাবা খেয়াল করবেন। খুব বেশি ঠান্ডা মনে হলে গরম রাখার চেষ্টা করবেন।

# শীতে বিড়ালের যত্নের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন বিড়ালের লিটার বক্স এবং খাবার জায়গা জলের পাত্র সব যেন তার আশেপাশেই থাকে।

# শীতে বিড়ালের যত্ন নেওয়ার ক্ষেত্রে আপনার ঘরের হিটার কে সাবধানে রাখুন। কেননা বিড়াল হিটারের উষ্ণতা নেওয়ার জন্য হিটারের পাশে বসতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

বিড়াল নিয়ে আরও পড়ুন নিচের লিঙ্ক থেকে 

বিড়ালের খাবার তালিকা থেকে পুষ্টি চাহিদা পূরণের বিস্তারিত তথ্য

বিড়ালের ফ্লু রোগ

শীতে বিড়ালের যত্নে বিড়ালকে ফ্লু রোগ থেকে দূরে রাখতে বিড়ালের শরীর উষ্ণ রাখার চেষ্টা করুন।

লক্ষণের মাত্রা বুঝে বিড়ালকে প্রাণী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গিয়ে এন্টিবায়োটিক দিতে পারেন। কোন ধরনের ভাইরাস বিড়ালকে আক্রমণ করেছে তার ওপর ভিত্তি করে এন্টিবায়োটিক প্রয়োজন হতে পারে।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ফ্লু আক্রান্ত বিড়ালের যত্ন বাড়িতেই নিতে বলে থাকেন প্রাণী চিকিৎসকরা। বিড়ালের শুরু হইলে তাকে অন্য বিড়াল থেকে আলাদা রাখুন।

কারণ বিড়ালের এক বিড়াল থেকে অন্য বিড়ালে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। শীতে বিড়ালের যত্ন নেওয়ার ক্ষেত্রে বিড়ালের পুরো রোগের দিকে একটু বেশি মনোযোগ দিবেন।

বিড়াল নিয়ে আরও পড়ুন নিচের লিঙ্ক থেকে 

ইসলামিক বিড়ালের নাম || ছেলে ও মেয়ে বিড়ালের সুন্দর নাম ||

বিড়াল একটি প্রেমময় প্রাণী বিড়াল এর বৈশিষ্ট্য, খাদ্যাভাস, বাসস্থান ও অন্যান্য তথ্য

শেষ কথা

শীতে বিড়ালের যত্নের ক্ষেত্রে সর্বোপরি বলতে চাই আপনার বিড়ালটি যদি ঠিকমতো না খেলে, অলসতা বোধ করে, ভাত খেতে না চায় তাহলে দ্রুত একজন প্রাণী চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করুন। সচেতন থাকুন। চোখ কান খোলা রাখুন আর প্রতিনিয়ত শিক্ষার মধ্যে থাকুন।  ভালো থাকবেন সবাই । আজ এ পর্যন্তই ।